গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি I Best meat

গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি 

গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি – সম্মানিত পাঠক ভাই ও বোনেরা সবাইকে ঈদ উল আজহার অগ্রিম শুভেচ্ছা ও আমাদের ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে অন্যটিকে সালাম ও অভিনন্দন। আজ আপনাদের জন্য একটি আকর্ষণীয় তথ্য নিয়ে আলোচনা করতে এসেছি আশা করি আপনাদের অনেক উপকার হবে। কোরবানির ঈদ কম বেশি সবাই গরুর মাংস রান্না করেন কিন্তু কালাভুনা রান্না করার সহজ রেসিপি গুলি অনেকের হয়তো অজানা থাকে I 

আরো দেখুন : কম্পিউটার টিপস এন্ড ট্রিকস 

ঢাকা থেকে রাজশাহী কত কিলোমিটার

অগ্রণী ব্যাংক হেল্পলাইন নাম্বার

পাকা কলার উপকারিতা ও অপকারিতা

ভিভো মোবাইল বাংলাদেশ প্রাইস ২০২২

শারীরিক দুর্বলতা কাটানোর খাবার

অপ্পো মোবাইল দাম ২০২২ বাংলাদেশ

কালোজিরা তেলের উপকারিতা কি

মসলার নাম রাঁধুনি কি

পদ্মা সেতু a to z

গোপন ক্যামেরা দাম ২০২২

প্রাচীন বাংলার জনপদ কতটি

ল্যাংড়া আম চেনার উপায়

সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী

প্রতিদিন কয়টি লবঙ্গ খাওয়া উচিত

খুব সহজে হারানো মোবাইল ফিরে পাবেন

 

তাই আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে সবাইকে জানিয়ে দিবো কিভাবে খুব উপায়ে রুর মাংসের কালো ভুনা রান্না করতে পারেন। আশা করি মনোযোগ সহকারে আমাদের আর্টিকেল টি পরে নিবেন হয়তো ভালো লাগার মতো একটা ফিলিংস কাজ করবে আপনার মনের ভিতর তা হয়তো মনে মনে এতদিন এইটাই খুজতেছিলেন। তাই চোখ রাখুন আমাদের নিম্নের আর্টিকেলটির উপরে।

ঈদুল আজহায় টানা কয়েক দিন ধরেই মাংসের নানা খাবারের ধুম পড়ে যায়। এর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় একটি খাবার হলো গরুর মাংসের কালো ভুনা। অনেকের হয়তো ধারণা গরুর মাংসের কালা ভুনা মানে, মাংস ভেজে কালো করা। কিন্তু না, গরুর মাংসের কালা ভুনা এমন একটা রেসিপি যা মসলার মাধ্যমে মাংসটাকে রান্না করে কালো করা হয়। তবে এ রেসিপিতে অনেক মশলার ব্যবহার করতে হয়। আসুন জেনে নেই গরুর মাংসের কালা ভুনার সহজ রেসিপি।

গাজী পানির ট্যাংক দাম ৫০০ লিটার

ভিশন ব্লেন্ডার 750W দাম বাংলাদেশে

পদ্মা সেতুর টোল আদায় করবে কে

শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে অর্থ উপার্জন করার কৌশল

কালো ভুনা রান্নার উপকরণ  – গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি

গরুর মাংস ২ কেজি, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, লবণ ১ টেবিল চামচ, ধনে গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা ১ কাপ পরিমাণ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, গোল মরিচ ১০-১২টা, লং ৬-৭টা, ছোট এলাচ ৪-৫টা, তেজপাতা ৪টা, বড় এলাচ ৩-৪টা, দারুচিনি,

স্টার মশলা ৩-৪টা, তেল ১ কাপ পরিমাণ, গোল মরিচের গুঁড়া ১ চা-চামচ, গরম মসলার গুঁড়া ১ চা-চামচ, ১টা জয়ফলের গুঁড়া, ৩ গ্রাম পরিমাণ জয়ত্রী, জিরা গুঁড়া ১ চা-চামচ। বাগার দিতে যা যা লাগবে: সরিষার তেল ১ কাপ পরিমাণ, পেঁয়াজ কুচি ১কাপ, রসুন কুচি ০.৫ কাপ পরিমাণ, আদা কুচি ০.৫ কাপ পরিমাণ, ১০টি শুকনো মরিচ।

কালো ভুনা রান্নার প্রণালি – গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি

প্রথমেই মাংস ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে। পানি ঝরিয়ে রান্না করার পাত্রে নিতে হবে। এবারে মাংসে সব মসলা মিশিয়ে নিন। উল্লেখিত সব মসলা দিয়ে মাখাতে হবে। মাংস চুলায় বসিয়ে জ্বাল দিবেন। মনে রাখবেন প্রথমেই পানি দেয়া যাবে না। জ্বাল দিতে থাকলে আস্তে আস্তে মাংসের ভেতর থেকে পানি বের হবে ওই পানি দিয়েই মাংসটাকে কষানো যাবে।

কষানোর পর যদি মাংস সেদ্ধ না হয় তা হলে পরিমাণ মতো একটু পানি দিবেন। পানি দিয়ে মিডিয়াম আচে মাংস জ্বাল দিতে থাকবেন। মাংসটা পুরোপুরি সিদ্ধ হয়ে গেলে অর্থাৎ রান্না হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

এবারে রান্না মাংস বাগার দিতে হবে। একটা প্যানে তেল, পেঁয়াজ, রসুন, আদা, শুকনা মরিচ ভেজে তার মধ্য রান্না মাংসটাকে দিতে হবে। এরপর ভালোভাবে নেড়ে দিতে হবে যাতে তেলটা মিশে যায়। এভাবে কিছুক্ষণ হালকা আচে চুলায় রেখে দিতে হবে এবং নাড়তে হবে যাতে লেগে না যায়।

এভাবে প্রায় ৩০ মিনিট মাংসটাকে চুলায় রেখে নাড়তে হবে আস্তে আস্তে মাংসটা কালো হয়ে যাবে এবং মাংসে মধ্যে সব মসলা ঢুকে যাবে। এবার পেঁয়াজ বেরেস্তা ওপর দিয়ে ছিটিয়ে দিন। চুলা থেকে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

গোপন টিপস—

অনেকে কালিজিরা নাও দিতে পারেন আবার অনেকে টক দই দিয়ে ম্যারিনেট করতে পারেন। কেঊ চাইলে কাঁচা মরিচ আস্ত দিতে পারেন সুগন্ধের জন্য। রান্না যার যেমন খুশী কে কেমন খাবেন।

গরুর মাংসের রেসিপি – গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি

হ্যালোও ভিউয়ার্স আজ আপনাদের জন্য সামনে কোরবানির ঈদ এর জন্য একটি আকর্ষণীয় তথ্য নিয়ে হাজির হয়েছি আশা করি অনেক বেশি ভালো লাগবে আপনাদের এবং যে হয়তো গরুর মাংস রেসিপি করতে অনেক সহায়তা করবে। আমাদের এই ওয়েবসাইট সব সময় আকর্ষণীয় তথ্য নিয়েই কথা বলতে ভালোবাসে।

তাই আর দেয় না করে চলে যাই আসল কথায়। আপনারা হয়তো জানেন গরুর মাংস রান্না করতে একটু ঝামেলা পোহাইতে হয় তাই কিছু সঠিক নিয়ম ফলো করলে খুব অল্প সময়েই হয়ে উঠবে সেরা গরুর মাংসের রেসিপি অনেক সুস্বাদু ও মজাদার পূর্ণ খাবার। তাই চলুন জেনে নেই কিভাবে রেসিপি বানাবেন। 

প্রথমে মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়ে একটি পাত্রে মাংস, টক দই, লবণ ও সব মসলা একসঙ্গে ভালো করে মেখে ২০ মিনিট মেরিনেট করে রাখবেন। পাতিলে তেল গরম করে অর্ধেক পেঁয়াজ কুচি, দারচিনি, এলাচ, তেজপাতা হালকা বাদামী করে ভেজে মেরিনেট করা মাংস দিয়ে নেড়ে কষাতে হবে। ৪ কাপ পরিমাণ পানি দিয়ে মৃদু আঁচে রান্না করতে হবে। 

মাংস সিদ্ধ হয়ে আসলে ও মাংসের ওপর তেল ভেসে উঠলে নামিয়ে রাখতে হবে। তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি, রসুনের কোয়া, টমেটো কিউব হালকা বাদামী করে ভেজে মাংস পাতিলে দিয়ে ২/৩মিনিট দমে রেখে নামিয়ে ফেলুন। ব্যস তৈরি হয়ে যাবে গরুর কড়াই গোস্ত। এইভাবেই আপনারা বানানোর চেষ্টা করবেন আশা করি অনেক ভালো রেসিপি হয়ে যাবে।

মাংস রান্নার রেসিপি

প্রথমে মাংসগুলো থেকে চর্বি আলাদা করে নিয়ে নিবেন। মাংস গুলি ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিবেন। মনে রাখবেন যত ছোট টুকরা করবেন ততই তেলজাতীয় পদার্থ ঝরে পরে যাবে। খুব পরিমানে অল্প তেলে রান্না করবেন। অনেকে হয়তো মনে করে থাকেন, তেল বেশি দিলেই বুঝি রান্না ভালো হয়  এটা একদম ভুল কথা। তাই অল্প তেলে রান্না করবেন গরুর মাংস। কেননা, গরুর মাংসের নিজস্ব যে তেল আছে, তাতেই অনেকটা কাজ হয়ে যায়। এই জন্য অবশ্যই সয়াবিনের বদলে ব্যবহার করতে পারেন খাঁটি শর্ষের তেল। 

অনেক সময় মাংস সিদ্ধ হতে সময় লাগে তাই এর সহজ সমাধান আছে। পেঁপে, আনারস, নাশপাতির রস, লেবু, ভিনেগার, দই মাংস নরম করতে সাহায্য করে। পেঁপে, আনারস, নাশপাতি বেটে, সব মসলা দিয়ে মাংস ৩০ মিনিট ম্যারিনেট করুন। লেবু, ভিনেগার, দইয়েও মাখিয়ে রাখতে পারেন মাংস।

তবে বেশিক্ষণ ম্যারিনেট করে রাখবেন না। তাতে মাংসের প্রোটিন স্ট্রাকচার দুর্বল হয়ে যেতে পারে। রান্নার আগে মাংসে বেশি করে লবণ মেখে ঘণ্টাখানেক রেখে দিবেন। লবণ মাংসের শক্ত মাসল ফাইবার সহজেই ভেঙে ফেলে। তাই মাংস নরম হয়ে যায়, সহজে সিদ্ধ হয়ে যায়। টক দই বা আম, চালতা, জলপাইয়ে বোম্বাই মরিচের আচার দিয়েও রান্না করতে পারেন গরুর মাংস।

সবশেষে বলতে চাই গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি এর উপর যে আলোচনা হয়েছে আশা করি অনেক পছন্দ হয়েছে এবং উপকার হয়েছে। আজ হয়তো জেনে গেলেন কিভাবে খুব অল্প সময়ে গরুর মাংসের কালা ভুনা রান্নার সহজ রেসিপি তৈরি করতে হয়। এই রকম তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইট টি নিয়মিত ফলো করে রাখতে পারেন। সব সময় চেষ্টা করি এই রকম কিছু তথ্য দিয়ে সবাইকে সহযোগিতা করি। আজ বিদায় নিচ্ছি আবার দেখা হবে এই রকম ভালো মানের আর্টিকেল নিয়ে সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Leave a Comment